চাল বিতরণে অনিয়মের দায়ে আ.লীগ সভাপতি ও ছাত্রলীগ সম্পাদককে অর্থদণ্ড

মেহেদি হাসান, টাঙ্গাইল থেকে :

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচিতে অনিয়মের দায়ে ভাতগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চালের ডিলার আশরাফুল আলম বাচ্চু (৫৮) এবং তার সহকারি ঐ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাজেদুল ইসলাম খানকে (২২) দেড় লক্ষ টাকা অর্থদ-, অনাদায়ে ১৫ দিনের কারাদ- দিয়েছেন ভাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবদুল মালেক।

হতদরিদ্র নির্বাচিত পরিবারকে ৩০ কেজি করে চাল সরকার নির্ধারিত মূল্যে সরবরাহে পরিমাণে কম দেয়া হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার (১৩ এপ্রিল) তাৎক্ষণিক অভিযান চালায় প্রশাসন। উপজেলার দুল্যাবেগম এলাকায় গিয়ে হাতেনাতে প্রমাণও মেলে। প্রতি ৩০ কেজির জায়গায় পরিমাপে দেখা যায় উপকারভোগীদের জনপ্রতি ২-৩ কেজি চালে কম দেয়া হয়েছে। তবে এর কোনো সঠিক উত্তর দিতে পারেনি ডিলার।

এছাড়াও চাল বিতরণের নিয়ম তোয়াক্কা না করেই অনেকের সুপারিশের ভিত্তিতে অনির্বাচিত কার্ডহীনদের চাল দিয়েছেন বলেও অভিযোগ পাওয়া যায়।

জানা যায় ভাতগ্রাম ইউনিয়নে কার্ডধারী হতদরিদ্রদের মধ্যে ৪২১ জনকে চাল বিতরণের কার্যক্রম হাতে নেয় এই ডিলার। গত সপ্তাহে একইভাবে চাল বিতরণ করেছেন ২০৫ জনের মাঝে এবং আজ ১৪২ জনের মাঝে। যেখানে হেরফের হয় ১৪ বস্তা চাল, যার হিসেব দিতে পারেনি ডিলার।

এদিকে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচিতে ডিলারের নীতিমালা ও অঙ্গীকার নামার শর্ত লঙ্ঘনের দায়ে তার ডিলারশিপ বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক শাব্বীর আহমেদ মুরাদ।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক বলেন, গোপন সংবাদে জানতে পারি যে ডিলার তার মাধ্যমে এইখানে উপকারভোগীদের চাল পরিমাণে কম দেয়া হচ্ছে এবং সরেজমিনে আমরা এর সত্যতা পাই। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে তাদেরকে অর্থদন্ড দেয়া হয়েছে। তিনি আরও উল্লেখ করেন, উক্তস্থানে দু’একদিনের মধ্যেই নতুন ডিলার নিয়োগ দেওয়া হবে, আমাদের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে, চাল নিয়ে দুর্নীতি করলে কাউকেই ছাড় দেয়া হবেনা বলে হুশিয়ারি দেন তিনি।

You might like

অনুমতি ব্যতীত এই সাইটের কোনো সংবাদ, ছবি অন্য কোনো মাধ্যমে প্রকাশ আইনত দণ্ডনীয়