পঞ্চগড়ে রড দিয়ে পিটিয়ে স্ত্রী হত্যা: স্বামী গ্রেপ্তার

এন এ রবিউল হাসান লিটন, পঞ্চগড় প্রতিনিধ :

পঞ্চগড়ে জোসনা বেগম (২৬) নামে এক গৃহবধূকে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। স্ত্রী হত্যার অভিযোগে স্বামী দেলোয়ার হোসেনকে (৩৫) গ্রেপ্তার করেছে পঞ্চগড় থানা পুলিশ।

দাম্পত্য কলহের কারণে জোসনা বেগমকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। দেলোয়ারের বাড়ি পঞ্চগড় সদর উপজেলার ধাক্কামারা ইউনিয়নের দোমনি সরকারপাড়া এলাকায়। সে ওই এলাকার মৃত মইনুদ্দীনের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, প্রায় ৭ বছর আগে পঞ্চগড় সদর উপজেলার ধাক্কামারা ইউনিয়নের দোমনি সরকারপাড়া এলাকার মইনুদ্দীনের ছেলে দেলোয়ার হোসেনের সঙ্গে পঞ্চগড় সদর ইউনিয়নের ডাবরভাঙ্গা এলাকার গিয়াস উদ্দিনের মেয়ে জোসনা বেগমের বিয়ে হয়।

তাদের সংসারে চার বছরের একটি মেয়ে সন্তান আছে। বিয়ের কয়েক বছর তাদের সংসার ভালোই চলে। এরপর তাদের দাম্পত্য ও পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হয়।

কারণে অকারণে দেলোয়ার জোসনাকে মারধর করে এবং তালাকের হুমকি দেয়। এ নিয়ে বহুবার শালিসও হয়। অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে জোসনা বাবার বাড়ী চলে যায়। কয়েক মাস আগে সে বাবার বাড়ী থেকে স্বামীর বাড়ী ফিরে আসে।

শনিবার সকালে আবার তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে দেলোয়ার লোহার রড দিয়ে জোসনার মাথায় আঘাত করলে তার মাথা মারাত্মকভাবে জখম হয় এবং অজ্ঞান হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।

সে অবস্থায় শ্বশুর বাড়ির লোকজন জোসনাকে উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে চিকিৎকরা উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুরেই জোসনা মারা যায়। খবর পেয়ে পঞ্চগড় সদর থানা পুলিশ দেলোয়ারকে শনিবার রাতে গ্রেপ্তার করে।

পঞ্চগড় সদর থানার ওসি আবু আক্কাস আহমদ বলেন, দাম্পত্য ও পারিবারিক কলহের জেরে ঝগড়ার একপর্যায়ে দেলোয়ার তার স্ত্রী জোসনাকে লোহার রড দিয়ে মাথায় আঘাত করে।

পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে। দেলোয়ারকে আমরা গ্রেপ্তার করেছি। এ বিষয়ে হত্যা মামলা হয়েছে। ওই গৃহবধূর লাশ ময়নাতদন্ত শেষে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

You might like