মায়ের কষ্টটা আমাকে দারুণভাবে কষ্ট দিলো

কথিকা

ক্ষুদীরাম দাস :

মা আমার নাম রেখেছেন নিলীমা। এই নামটি আমার বান্ধবীরা দারুণ পছন্দ করেছে। একদিন মায়ের ডায়েরী খুলে দেখলাম, নিলীমা নামে মা সুন্দর সুন্দর কবিতা লিখেছেন। কবিতাগুলো সব আমার ছোট বেলার। তখন কী করেছি সেসব নিয়েই লেখা সবগুলো কবিতা। পরের পাতায় দেখলাম, আমার ভাইকে নিয়ে লেখা।

লেখা আছে-আমার ছেলে এখন খুবই ব্যস্ত। কাজে ব্যস্ত; সারাদিন দৌঁড়াদৌঁড়ি। আমার শরীরটাও অনেক দুর্বল হয়ে গেছে। আগের মতো আর আমার ছেলে রাতের দেখতে উঠোনে আসে না। সারাদিনের ব্যস্ত শরীরে ক্লান্তিতে গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন থাকে। শখের বশে চায়ের দোকানে চা খাওয়ার আড্ডা দেয়া হয় না। সারাদিন ঘরে বসে থেকে খুবই বিরক্ত আসে। তাই ছেলের বউকে অনেক মনের আনন্দেই বলেছিলাম যেন আমাকে একটা ডায়রী কিনে দেয়। সাথে সাথে বউ আমাকে উত্তর দিলো-ডায়েরী দিয়ে আপনি কী করবেন? বললাম-কিছু র্লিখবো এবং পত্রিকায় পাঠাবো? সে সাথে সাথে উত্তর দিলো-এসব লিখে কী হবে? আমার মনটা খুব খারাপ হয়ে গেলো।

বউয়ের মধ্যে শিক্ষার আলো আছে বলে মনে হলো না। বউ আমাকে উত্তর দিলো-এতো দামী দিয়ে ডায়েরী না লিখে কিছু খাতা কিনলেও তো চলে।

এখন বউয়ের কাছ থেকে টাকা চাইতে আমার খুব লজ্জা লাগে। এরপর থেকে আর কোনোদিন তার থেকে টাকা চাইনি, চাইবো না। মায়ের কষ্টটা আমাকে দারুণভাবে কষ্ট দিলো। আমি ডায়েরীটা রেখে ঘর থেকে বের হয়ে এলাম।

আমরা সংবাদের বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাসী, প্রিয় সময় গুজব প্রচার করে না

১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ খ্রি. ০১ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৭ মুহররম ১৪৪২ হিজরি, বুধবার

You might like