অভিনব কায়দায় চালকের টাকা ও ফোন ছিনতাই করত এ প্রতারক

নিউজ ডেস্ক :
চট্টগ্রামে ইমরান নামে এক প্রতারককে আটক করেছে পুলিশ। যার নেশা প্রতি সন্ধ্যায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা রিকশায় চড়ে ভাড়া না দিয়ে চালকের টাকা এবং মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেওয়া। এমনকি অভিনব কায়দায় রিকশাচালকের টাকায় বাসার বাজার পর্যন্ত করে নিত সে। পুলিশ পরিচয়ে রিকশাচালকের মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিতে কৌশলে, থানাকেও ব্যবহার করেছে এ প্রতারক।

বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) সিএমপির কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসিন বলেন, গার্মেন্টস শ্রমিক ইমরান প্রতি রাতেই পুলিশ পরিচয়ে রিকশাচালকদের টাকা এবং মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিতো সে। অসংখ্য রিকশাচালক থানায় এসে অভিযোগও করেছেন। কিন্তু তথ্যপ্রমাণের অভাবে তাকে এত দিন আইনের আওতায় আনা যায়নি। অবশেষে তাকে ধরা হয়েছে।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, থানায় ঢুকে উঁকিঝুঁকি মারছে প্রতারক ইমরান। কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার পর আবার বের হয়ে যায় সে। তবে বের হওয়ার পথ তার ভিন্ন অর্থাৎ থানার উল্টোপথে ব্যবহার করে এ প্রতারক।

মূলত পুলিশ পরিচয়ে এক রিকশাচালকের মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেওয়ার পর ইমরান থানায় আসে নিজেকে পুলিশ পরিচয় দিতে। আশপাশে ঘুরে আবার অন্যপথে বের হয়ে যেত সে। এভাবেই প্রতি সন্ধ্যায় রিকশাচালকদের বোকা বানিয়ে টাকা-মোবাইল ফোন ছিনতাই করত ইমরান। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি তার। প্রতারণার শিকার এক রিকশাচালক রফিক তাকে হাতেনাতে ধরা ফেলে। প্রতারক ইমরানকে ধরার পর রিকশাচালক রকিফুল ৯৯৯ নাইনে ফোন দিয়ে পুলিশের সহায়তা চান। এরপর কোতোয়ালি থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রতারক ইমরানকে আটক করে। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বেশ ক’টি ছিনতাইয়ের কথা শিকারও করেছে সে।

এসএসসি পাস ইমরান জাতিগতভাবে আটকেপড়া পাকিস্তানি বিহারি বলে জানিয়েছে পুলিশ। বর্তমানে তার পরিবার রাঙামাটির কাপ্তাই এলাকায় থাকে।

 

14 জন পড়েছেন

You might like