কিছু মানুষের বোধশক্তির অভাব!

সম্পাদকীয়

প্রতিটি মানুষেরই বোধশক্তি গুরুত্বপূর্ণ! বোধশক্তি না থাকলে মনুষ্যত্ব বজায় থাকে না। হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে যায় ও যা ইচ্ছা তাই করতে মন চায়। বিবেকবোধ শূন্য হয়ে গেলেই মানুষ পাপ কাজ করতে থাকে। তখন কোনটা ভালো কোনটা মন্দ সেটা বোঝার মতো ক্ষমতা তারা হারিয়ে ফেলে। আর তখনই তাদের মন যা চায়, তাই করতে কোনো বাধা আসে না। এটাই হলো বোধশক্তির অভাব।

প্রিয় সময়ে ‘রায়পুরে রাতের আঁধারে ফসল নষ্ট করেছে দুর্বৃত্তরা, নিঃস্ব কৃষক আনোয়ার’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের মাধ্যমে আমরা জানতে পেরেছি কিছু অজ্ঞাত পরিচয়হীন মানুষের বোধশক্তিহীন কাজের নমুনা। যা’ আমাদের দারুণভাবে হতবাক করেছে। প্রকাশিত সংবাদের মাধ্যমে আমরা জানতে পেরেছি, ‘ল²ীপুর জেলার রায়পুর উপজেলার ১নং উত্তর চরআবাবিল ইউনিয়ন এর ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোঃ আনোয়ার হোসেন মালের প্রায় ১৬০ শতাংশ (এক একর) বাংঙ্গি ক্ষেতের ফসল গাছগুলো উপড়ে ফেলে দুর্বৃত্তরা। ১৩ (মার্চ) দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে।’ জমির মালিক দীর্ঘদিন যাবত কৃষিকাজের সাথে জড়িত। কিন্তু হঠাৎই তার জমি থেকে রাতের অন্ধকারে সকল ফসল নষ্ট করায় চার লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। কিন্তু ফসলের সাথে এ কেমন শত্রæতা! বিষয়টি যেমন হতবাক করার মতো, তেমনি আশ্চর্যেরও।

দৃশ্যত আমরা মনে করি যে, ফসলের মালিকের অনেক ক্ষতি হয়েছে-এটা ঠিক। কিন্তু ক্ষতি হয়েছে আমাদের সকলের, দেশের ক্ষতি হয়েছে, দেশের সকল মানুষেরই ক্ষতি হয়েছে। এটা পরিস্কার যে, দেশে যদি ফসল চাষ না হয়, তাহলে মানুষের খাবার জুটবে না। তেমনি ঐ ফসল নষ্ট হওয়াতে আমাদেরও খাবার জুটবে না, খাদ্যে ঘাটতি হবে।

সত্যিই, যারা এমন জঘন্যভাবে ফসলের ক্ষতি করেছে-এটা তাদের বোধশক্তিহীন কাজ। কোনো সুস্থ মস্তিষ্কের মানুষ এমন কাজ করতে পারে ভাবতেই অবাক লাগে। এই কাজকে আমরা পশুর কাজ বলেও অভিহিত করতে পারি। এমন পশুদের আমরা বিচার চাই। কিছু মানুষের এমন বোধশক্তির অভাবযুক্ত কাজের কারণে সমাজের ক্ষতি হয়েই যাচ্ছে। শিক্ষার আলো জ¦ালিয়ে তাদের এমন পশুত্বকে নিভৃত করা যায়।

You might like