ক্ষুদীরাম দাসের কবিতা : এটাই স্বাধীনতার বর্ণনা

ক্ষুদীরাম দাস

খাঁচায় বন্দী পাখিটা
উড়তে ছটফট সর্বক্ষণ
উন্মুক্ত আকাশে ডানা মেলার সুখ
নিঃশ্বাসে সুখ পাই প্রতিক্ষণ;
স্বাধীনতার সুফল কুড়াই, আহা-সে কী আনন্দ;
তেমনি আমরা মানুষ!

স্বাধীনতার সুফল মানুষের ঘরে ঘরে, মানুষের মনে মনে
তবু কেন এতদিন পরেও কষ্ট ক্ষণে ক্ষণে
কেউ খেটে মরছে করছে দেশের কল্যাণ,
আবার কারো কাজের অকাজে হয় মানুষের মরণ।
আবার কেউ বা নিবেদিত জনকল্যাণে,
কেউ বা অন্যের স্বাধীনতার সুখ কেড়ে পরিপূর্ণ ধনে।

আমাদের সকলের সংগ্রাম হোক ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত দেশ গঠনে
কেউ মুক্তিযুদ্ধ করেছেন, আর এখন কেউ জীবন বিলিয়ে দিলেন দেশের সম্মানে।

এক সময় ছিলো বাংলা ও বাঙালি শৃঙ্খলে বন্দী,
পাকিস্তান নামক ধর্মান্ধ সা¤প্রদায়িক ও সামরিক শাসনে
প্রাণপণ সাহসী সংগ্রামে মুক্তির দুর্বার আকাক্সক্ষায় ছিলো বাংলার মানুষ
সংগ্রামের তেজোদীপ্ত চেতনায় হয়ে দেদীপ্যমান বাংলা ও বাঙালি
২৫ মার্চ রাতের অন্ধকারে রক্তপিপাসু ইয়াহিয়া-ভুট্টো চক্র
ভেঙ্গে গেছে দামাল ছেলেদের আক্রমণে,
আর শহীদের কঠিন মূল্যে অর্জিত এই স্বাধীন বাংলাদেশ।

বাঙালির প্রতিটি স্বাধীনতা দিবস অনন্য ঐশ্বর্যে ভাস্বর।
তাই সারা পৃথিবী অভিনন্দিত করছে বাংলাদেশকে।

তবে এখনো মুক্ত হয়নি কালো টাকার মালিক হতে
ওরা বিদেশে পাচার করে দেশের অর্থ!
ওরা গড়ে তুলছে কালো টাকার ধনীপাড়া, যা’ অপ্রত্যাশীত।
ওরা দুর্নীতিবাজ!
ওদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে হবে
ওদের উৎখাত করবো বাংলার মাটি হতে,
এই হোক সংগ্রাম আবার।

আবার ঘুষখোর, মুনাফাখোর, চোরাচালানি
ওরা দেশকে জ্বালিয়ে মারছে
বর্ষাকালের রক্তচোষা জোঁকের মতো চুষে খেয়ে চলেছে প্রতিনিয়ত!
ওরা দেশের উন্নয়নে বড় বাধা,
এখন ওদের খতম করা দরকার,
বাংলার দুঃখী মানুষের দুঃখমোচনের জন্য।

বড় কষ্টের কথা!
হীন ব্যক্তিস্বার্থ দলীয় সংকীর্ণতা
জাতীয় ঐক্যের বড় বাধা।
এখনো দেশে রাজাকার বাস করে
ওদের মুখে এখনো লালা পড়ে,
মাঝে মাঝে জেগে উঠে কাপুরুষের মতো,
ওরা জাতীয় ঐক্যের বড় বাধা।
আর ঘুষখোর, মুনাফাখোর, চোরাচালানি
জাতীয় ঐক্যের বড় বাধা।
কালো টাকার ধনীপাড়া
জাতীয় ঐক্যের বড় বাধা।

সঙ্কট নিরসনে ঃ
বঙ্গবন্ধু বলে গেলেন উন্নয়নের কথা-
‘–এক নম্বর হল- দুর্নীতিবাজ খতম করা
দুই নম্বর হল- কলকারখানায়, ক্ষেতে-খামারে প্রোডাকশন বাড়ানো,
তিন নম্বর হল- পপুলেশন প্ল্যানিং,
চার নম্বর হল- জাতীয় ঐক্য।’

আমরা এগিয়ে চলি
এ বাংলাকে সুখী বলি।
দুর্জন হটাই, আর ‘সোনার বাংলাদেশ গড়ি’
এই হোক আমাদের কামনা,
এটাই স্বাধীনতার বর্ণনা।

You might like