আল্লাহ তায়ালা কি সব জায়গায় বিরাজমান নাকি আরশে আজিমে সমাসীন?

 

অত্যন্ত স্পর্শকাতর একটি প্রশ্ন।
আল্লাহ সুবহানাহু তায়ালা সর্বত্র বিরাজমান।
علم وقدرة.
(ইলমান ওয়া কুদরাতান)
কিন্তু,তিনি সবার উপরে।
فوق السموات السبع.
(ফাওকাস-সামাওয়াতি ওয়া সাবয়ি)।
সপ্তাকাশের উপরে,আল্লাহ কোন দিকের মূখাপেক্ষি নন।তিনি সৃষ্টির মধ্যে আবার সৃষ্টির উপরে।
তবে,তিনি আরশের মূখাপেক্ষি নন।

আল্লাহ তায়ালা যখন আরশ তৈরী করেননি তখনও আল্লাহ ছিলেন।আরশে আজিম হলো মহান আল্লাহ তায়ালার গোটা সৃষ্টির মধ্যে সবচেয়ে দামি ও সবচেয়ে উপরে।
সকল আকারের স্রষ্টা মহান আল্লাহ তায়ালা নিরাকার ও অদ্বিতীয়।

পবিত্র কুরআনের সূরা আ’রাফের ৫৪-নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে মহান আল্লাহ তায়ালা ছয় দিনে পৃথিবী সৃষ্টি করেছেন অতঃপর আরশের উপর সমাসীন হয়েছেন।

তাফসীরে কাবিরে তানযিরুল কিতাবে মিনাল্লাহিল আজিজের ব্যাখ্যায় ইমাম রাজি লিখেছেনঃ-
সকল মুফাসসির একমত আল্লাহ তায়ালা দেহ থেকে পবিত্র, সকল আকারের স্রষ্টা আল্লাহ তায়ালা।
পবিত্র কুরআনের সূরা ফাতহ-এর ১০ নম্বর আয়াত দ্বারা বলা যায় যে আল্লাহ তায়ালার হাত আছে।
يد الله فوق أيديهم الخ.
(ইয়াদুল্লাহি ফাওক্বা আয়দিহীম)
অর্থাৎঃ-আল্লাহর হাত তাদের হাতের উপরে রয়েছে।
আল্লাহ তায়ালা সূরা আর-রাহমানের ২৭ নম্বর আয়াতে চেহারার কথা বলেছেন।
ويبقى وجه ربك الخ.
(ওয়া ইয়াবক্বা ওয়াজহু রাব্বিক)
উপরোক্ত আয়াতের ব্যাখ্যা করেছেন ইমাম আবু হানিফা (রঃ)-শরহে ফিকহুল আকবারে।
আল্লাহর চেহারা আছে,আমাদের মতো চেহারা নয়,
আল্লাহর হাত আছে,আমাদের মতো হাত নয়,
আল্লাহর ক্বদম আছে,আমাদের মতো ক্বদম নয়।
আল্লাহর কোন দ্বিতীয় অনুরুপ নেই।
আল্লাহর ঐ রকম হাত আছে যেরকম হাত আল্লাহর দরকার।
সেগুলি আমাদের মতো পাচঁ আঙ্গুল বিশিষ্ট নয়।

মোঃ-রফিকুল ইসলাম।
শিক্ষার্থীঃ-ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয়।

 

You might like