কুমিল্লায় মুনিয়া হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন

জাহাঙ্গীর আলম ইমরুল, কুমিল্লা ব্যুরো:
রাজধানীর গুলশানের একটি ফ্ল্যাট থেকে কলেজছাত্রী কুমিল্লার মোসারাত জাহান মুনিয়ার রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন এবং হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ অব্যাহত রয়েছে। হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে বুধবার দুপুরেও কুমিল্লা নগরীর কান্দিরপাড়ে টাউনহলের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড, মহানগর যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের উদ্যোগে পালিত এই মানববন্ধন কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম টুটুল, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও মহানগর যুবলীগের আহŸায়ক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ সহিদ, সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান তারিকুর রহমান জুয়েল, জাগ্রত মানবিকতার সাধারণ সম্পাদক তাহসিন বাহার সূচনা, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেকুর রহমান পিয়াস, মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সাধারন সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, কুমিল্লা সিটি কপোরের্শনের কাউন্সিলার মাসউদ রহমান, মহানগর ছাত্রলীগের আহŸায়ক আজিজ সিহানুক, যুগ্ম-আহŸায়ক নাইমুল হক হিমেলসহ প্রমুখ।
মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে কলেজ ছাত্রী মুনিয়ার হত্যাকারীদের বিচার ও মামলায় অভিযুক্ত বসুন্ধরা গ্রæপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরের গ্রেফতারে দাবি করা হয়। এ সময় তারা বলেন, মুনিয়া হত্যার বিচার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে। আর সঠিক বিচার না হলে কঠোর আন্দোলনে যাবেন তারা।

বক্তব্যে সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার বলেন, সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মুনিয়ার খুনিদের বিচার করতে হবে। এক সময় মানুষ রাজনৈতির নেতাদের কথার চেয়ে সাংবাদিকদের কথা বেশি বিশ্বাস করতো। কিন্তু মিডিয়ার এখন সঠিক তথ্য প্রকাশ করছে না। এতে মিডিয়ার প্রতি মানুষ আস্থা হারাচ্ছে। কিছু মিডিয়া হত্যাকান্ডের ঘটনাকে অন্যদিকে প্রবাহের চেষ্টা করছেন। হত্যাকান্ডের ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করা হবে, এমন বাংলাদেশ আমরা চাইনি, এমন বাংলাদেশের জন্য যুদ্ধ করিনি। বঙ্গবন্ধু এমন বাংলাদেশের ভিত্তি রচনা করেননি। আমি পুলিশ বাহিনীকে বলতে চাই, দোষী যে-ই হোক সঠিক তদন্তের মাধ্যমে তাকে চিহ্নিত করুন এবং তার বিচার হতে হবে। বিচার না হলে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

উল্লেখ্য, ২৬ এপ্রিল সন্ধ্যায় গুলশানের ১২০ নম্বর সড়কের ১৯ নম্বর বাসার একটি ফ্ল্যাট থেকে কলেজছাত্রী মোসারাত জাহান মুনিয়ার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান তানিয়া বাদী হয়ে বসুন্ধরা গ্রæপের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের সায়েম সোবহান আনভীরের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেন। ইতিমধ্যে ঘটনাটি নিয়ে দেশজুড়ে আলোচনার ঝড় বইছে। তবে এখন নিহতের পরিবার দাবি করছে, মুনিয়াকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

You might like