চাঁদপুরে একাধিক বিয়ে ও অর্থ লুটকারী প্রতারক জামাল আটক

সাইদ হোসেন অপু চৌধুরী, চাঁদপুর :
বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন রূপ ধারণ করে একাধিক জেলায় বিয়ে করে অর্থ লুট ও প্রতারক চক্রের একজন জামাল হোসেন (৩০)। এক এক স্থানে এক এক নাম ব্যবহার করে দীর্ঘদিন ধরে মানুষের চোখে ধুলো দিয়ে প্রতারণা করে আসছিল জামাল।

অবশেষে চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ তাকে আটক করতে সক্ষম হয়। জামাল কচুয়া উপজেলার সুবিদপুর ইউনিয়নের মৌলবি বাড়ির মাওলানা মো. সফিকুল ইসলামের ছেলে।

পুলিশ ও অভিযুক্তরা জানান, জামাল বিভিন্ন স্থানে ছদ্দ নাম ব্যবহার করে প্রতারণা করে আসছিল। সে মানুষের কাছ থেকে চাকরি ও বিভিন্ন সংস্থা থেকে ঘর পাইয়ে দেবার নাম করে টাকা হাতিয়ে নিত। শুধু তাই নয়, ভুয়া বাবা-মা সাজিয়ে পাত্রি দেখে বিয়ে করতো। এক সময় তাদেরকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি-ধমকি দিয়ে টাকা দাবি করতো জামাল।

চাঁদপুর শহরের ওয়ারলেস বাজার এলাকার মুদিদোকনি সামছুল আলমের কাছ থেকে জাপান সংস্থা থেকে বাড়ি পাইয়ে দেবার নাম করে গত ১৯ অক্টোবর দেড় লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। একই ভাবে বিলকিস বেগম নামের আরেক নারীর কাছ থেকে এক লক্ষ টাকা নেয়। সে ঢাকা, হাজীগঞ্জ ও চাঁদপুর শহরে মোট ৩ টি বিয়ে করেছে।

জামালের শ্বশুর সেকান্তর মাল বলেন, জামাল একজন প্রতারক। সে আমাদের সাথে বড় ধরনের প্রতারণা করেছে। জামাল প্রথমে নাম-ঠিকানা গোপন রাখে। সে ভুয়া বাবা-মা দেখিয়ে গত ২২ অক্টোবর আমার মেয়েকে বিয়ে করে। কত বড় প্রতারক হলে এমন কাজ করতে পারে। থানায় এসে দেখি, কত মানুষ তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে। আমরাও তার আইনগত ভাবে স্বাস্তি দাবি করছি।

জামালের প্রতারণার শিকার এক মেয়ে বলেন, প্রেমের অভিনয় করে মেয়েদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়া তার কাজ। বিত্তশালী মেয়েদের টার্গেট করে প্রতারণা ফাঁদ পাতে জামাল।

চাঁদপুর শহরের ওয়ারলেস বাজারের ব্যবসায়ী সামছুল বলেন, জামাল খুব স্মার্ট ভাবে চলাফেরা করে। সে মানুষকে সাহায্য সহযোগিতার আশ্বাস দেয়। তারি কথা অনেকে বিশ্বাস করে নি:স্ব হয়েছে। তার মধ্যে আমি একজন। জাপানের একটি সংস্থা নাকি কিছু টাকার বিনিময়ে বাড়ি করে দেয়। তাই আমিও সেই আশায় জামালকে দেড় লক্ষ টাকা দেই কিন্তু জামাল মিথ্যে বলে আমার টাকা আত্মসাত করেছে। আমি ও বিলকিস নামের এক নারী থানায় অভিযোগ করেছি। পুলিশও তাকে আটক করেছে।

চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুর রশিদ বলেন, জামাল কয়েকজনের কাছ থেকে টাকা আত্মসাত করেছে। এছাড়া একাধিক বিয়ে করারও অভিযোগ রয়েছে। সে বিভিন্ন কথা বলে মানুষের কাছ থেকে স্টেম্পের মাধ্যমে টাকা নিত। এমন অভিযোগে ভিত্তিতে পুলিশ তাকে আটক করে।

আরো পড়ুন : শ্বেতীর সাদা দাগ দূর করার উপায়

আরো পড়ুন : মেহ প্রমেহ ও প্রস্রাবে ক্ষয় রোগের কার্যকরী সমাধানসমূহ

আরো পড়ুন : পাইলস রোগে করণীয়

আরো পড়ুন : জেনে নিন দীর্ঘক্ষণ মিলনের ঔষধ

আরো পড়ুন : একজিমা হলে কী করবেন?

140 জন পড়েছেন

You might like